দৌলতদিয়ার পদ্মা নদীতে নিখোঁজের ৯দিন পর স্ত্রীর মৃতদেহ উদ্ধার

124

কামাল হোসেন,রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি:

গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের,তিন নম্বর  ফেরি ঘাটে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হওয়া স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ৯ দিন পর স্ত্রী আঞ্জুমান আরা খাতুনের (২০) মরদেহ উদ্ধার করেছে গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। ২৯শে জুলাই বেলা ৩ ঘটিকায় দৌলতদিয়ায় ৬ নম্বর ফেরি ঘাট এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।গোয়ালন্দ ঘাট ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিভেন্সের স্টেশন কর্মকর্তা আব্দুর রহমান মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দৌলতদিয়া ৬ নম্বর ফেরি ঘাটে মরদেহটি ভাসতে দেখে স্থানীয়রা খবর দিলে আমরা তাৎক্ষণিক ভাবে ঘটনাস্থলে এসে মরদেহটি উদ্ধার করি। মরদেহটি উদ্ধারের পর স্থানীয় ও নিহতের স্বজনরা লাশটি আঞ্জুমান আরা খাতুনের বলে শনাক্ত করেছে।মরদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে পাঠানো হয়েছে।উল্লেখ্য, গত ২১ জুলাই দৌলতদিয়ার পদ্মা নদীতে গোসল করতে গিয়ে তীব্র স্রোতের কারণে নদীতে ভেসে যায় মাদারীপুরের কালকিনী উপজেলার তফিকচর গ্রামের মোশাররফ হোসেনের ছেলে ইমন শেখ ও তার স্ত্রী রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানখানাপুর রেলগেট এলাকার আজিম শেখের মেয়ে আঞ্জুমান আরা খাতুন। নিখোঁজ হওয়ার পর গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ও ঢাকা থেকে আসা একদল ডুবুরি তাদের উদ্ধারের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।পরে ২৯শে জুলাই বেলা ২ঘটিকায় দৌলতদিয়ার ফেরিঘাটে স্ত্রীর  লাশ ভেসে উঠলেও এখনো স্বামী নিখোঁজ রয়েছে।