সিরাজগঞ্জে  ভুল চিকিৎসায় অবশেষে কামনার মৃত্যু

63
ইমরান হোসাইন,সিরাজগঞ্জঃ
অবশেষে সিরাজগঞ্জ শহরের আরাফাত হাসপাতালে ভুল চিকিৎসার শিকার সেই কামনা খাতুন (১৯) মারাগেছে। গত শনিবার রাতে ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যায়। শহর জুরে চলছে এনিয়ে নানা গুন্জন। কামনা খাতুন কালিয়া হরিপুর গ্রামের মো. আবু কালামের মেয়ে। সিরাজগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় কামনা খাতুন নামে এক প্রসূতি মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে শিরোনামে বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকা সহ স্থানীয় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। এর পর গত শনিবার তার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পরে ঐ হাসপাতালের কতৃপক্ষরা বিভিন্ন মহলে দৌরঝাপ শুরু করেছে বলে জানাগেছে।
উল্লেখ্য গর্ভবতী কামনা খাতুন প্রসব ব্যাথায় গত ২৫ জুন শহরের আরাফাত হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরদিন ২৬ জুন ডা. কমল কান্তি দাস অজ্ঞান করার পর ডা. আব্দুর রশিদ সিজার অপারেশনের মাধ্যমে সন্তান প্রসব করে। এরপর থেকেই কামনা খাতুন অসুস্থ্য হয়ে পরে। তিন দিন পর বাড়ি নিয়ে এলে আরও বেশি অসুস্থ্য হয়ে পড়ে সে। পরবর্তীতে ডা. রশিদ রোগী কে মেডিসিন বিশেষজ্ঞের কাছে রেফার্ড করেন। মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসক ডা. সাজ্জাদ মাসুদের কাছে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তিনি বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন।  চিকিৎসা শেষে সিরাজগঞ্জ ২৫০শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসার পর কিছুটা সুস্থ্য হয়ে উঠলে বাড়ি নিয়ে আসা হয়। কিছুদিনপর আবারও অসুস্থ্য হয়ে পরে কামনা খাতুন। মূমূর্ষ অবস্থায় তাকে গত ২৩ আগস্ট কমিউনিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার পরে কমউনিটি হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলে। কিছুদিন পরে তার অবস্থার খারাপের দিকে গেলে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার কথা বলে চিকিৎসক। গত ৭ সেপ্টেম্বর শনিবার গভির রাতে  সে ঢাকার একটি হাসপাতালে মারাযায়।
এ বিষয়ে চিকিৎসক ও আরাফাত হাসপাতালের পরিচালক ডা. আব্দুর রশিদ এর সাথে রবিবার সকালে সরেজমিনে কথা বলতে চাইলে তিনি দেখা করেননি। আরাফাত হাসপাতালের ম্যানেজার হাফিজুর রহমান এর কাছে আরাফাত হাসপাতালের পরিচালক ডা. আব্দুর রশিদ এর নম্বর চাইলে তিনি বলেন স্যারের নাম্বর আমাদের কাছে নেই স্যার ১২টায় দিকে চেম্বারে বসবে তখন আসেন।