তসলিমা নাসরিনসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা নথিভুক্ত

2
0

ধর্ষকের কাছে নারীর কোনো ধর্ম নেই’ শীর্ষক একটি কলাম লেখায় নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিনের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। দৈনিক ‘আল বাইয়েনাত’ মাসিক পত্রিকার সম্পাদক আল্লামা মুহম্মদ মাহবুব আলমের করা আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর শাহজাহানপুর থানায় মামলাটি নথিভুক্ত হয়। মামলা নম্বর-৩৬।

মামলায় তসলিমা নাসরিনসহ চারজনকে আসামি করা হয়েছে। অন্য আসামিরা হলেন, অনলাইন পোর্টাল ‘উইমেন চ্যাপ্টার’ সম্পাদক সুপ্রীতি ধর, সুচিষ্মিতা সিমন্তি ও লীনা হক। এ বিষয়ে শাহজাহানপুর থানার ওসি শফিকুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, মাহবুব আলমের আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত শাহজাহানপুর থানার ওসিকে এজাহার গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন। ওই নির্দেশনার প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার বাদীর অভিযোগটিকে মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হয়।

সূত্র জানায়, পবিত্র ইসলাম ধর্মের অবমাননার অভিযোগে নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন ও উইমেন চ্যাপ্টারের সম্পাদক সুপ্রীতি ধরসহ চারজনের বিরুদ্ধে গত ১৮ এপ্রিল সন্ধ্যায় শাহজাহানপুর থানায় মামলা দায়েরের জন্য গেলে কর্তৃপক্ষ তা গ্রহণ না করে আদালতে যাওয়ার পরামর্শ দেয়। এরপর মাহবুব আলম ১৯ এপ্রিল আদালতের শরণাপন্ন হন। গত বৃহস্পতিবার ঢাকার সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালে যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ২০০৬ এর ৫৭ ধারায় মামলাটি নিতে শাহজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দেন আদালত।

ট্রাইব্যুনাল মামলার বিষয়ে শুনানি নিয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার ক্রাইম ইউনিটকে অভিযোগটির বিষয়ে তদন্ত করার আদেশ দিয়েছেন। বাদীপক্ষের আইনজীবী হুজ্জাতুল ইসলাম আল ফেসানী জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। আইনজীবী জানান, লেখিকা তসলিমা নাসরিন, উইমেন চ্যাপ্টারের সম্পাদক সুপ্রীতি ধর, ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সুচিষ্মিতা সিমন্তি ও উপদেষ্টা সম্পাদক লীনা হকের বিরুদ্ধে পবিত্র ইসলামের অবমাননার অভিযোগে দৈনিক আল ইহসান ও মাসিক আল বায়্যিনাতের সম্পাদক আল্লামা মুহম্মদ মাহবুব আলম বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন। আমি তার পক্ষে আইনজীবী হিসেবে মামলাটি দায়ের করেছি। মামলা দায়েরের পর শুনানি শেষে ট্রাইব্যুনালের বিচারক মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিটকে অভিযোগটি তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।

বাদীর আনা অভিযোগে বলা হয়েছে, ‘উইমেন চ্যাপ্টার নামক ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সুপ্রীতি ধর, সুচিষ্মিতা সিমন্তি ও লীনা হকেরা প্রায়ই পবিত্র ইসলামের বিরুদ্ধে বিদ্বেষমূলক লেখা প্রকাশ করেন। তারই ধারাবাহিকতায় গত ১৭ এপ্রিল বিকেলে তসলিমা নাসরিনের ‘ধর্ষকের কাছে নারীর কোনো ধর্ম নেই’ শীর্ষক একটি নিবন্ধ প্রকাশ করে। ওই নিবন্ধে লেখা হয়, ‘পয়গম্বরও আরব দেশে ইহুদি পুরুষদের মেরে ওদের মেয়েদের নিজের সঙ্গীদের মধ্যে বিতরণ করেছিলেন। আইনজীবী জানান, লেখিকার এই বক্তব্যে বাদীর দ্বীনি অনুভূতিতে আঘাত লাগায় তিনি লেখিকা ও সংশ্লিষ্ট ওয়েবসাইটের সম্পাদকদের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here