মুক্তিযুদ্ধে গৌরবোজ্জ্বল দিন হিসেবে ২৯ জুলাই জাতীয় ডাক দিবস পালনের উদ্যোগ

2
0

মুক্তিযুদ্ধে ডাক বিভাগের গৌরবোজ্জ্বল দিন হিসেবে ২৯ জুলাই জাতীয় ডাক দিবস পালনের উদ্যোগ নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

রোববার (২৯ জুলাই) সচিবালয়ে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ এবং ফিলাটেলিক অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

২০০৩ সাল থেকে ফিলাটেলিক অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে ২৯ জুলাই ডাক টিকিট দিবস পালিত হয়ে আসছে।

মন্ত্রী বলেন, ১৯৭১ সালের ২৯ জুলাই ভারতীয় নাগরিক বিমান মল্লিকের ডিজাইন করা আটটি ডাক টিকিট মুজিব নগর সরকার, কলকাতায় বাংলাদেশ মিশন ও লন্ডন থেকে প্রকাশিত হয়। স্বাধীন বাংলাদেশের অস্তিত্ব প্রতিষ্ঠার অংশ হিসেবে মুজিব নগর সরকার কূটনৈতিক প্রক্রিয়া হিসেবে স্বাধীনতার স্বপক্ষে বিশ্ব জনমত গড়ে তোলার জন্য এ উদ্যোগ গ্রহণ করে।

মুক্তিযুদ্ধকালীন প্রবাসী মুজিব নগর সরকারের প্রকাশিত আটটি ডাক টিকিট ইতিহাসের অংশ হিসেবে আবারও প্রকাশের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করে মোস্তাফা জব্বার বলেন, স্বাধীনতার এ গুরুত্বপূর্ণ অংশটি নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে।

স্মারক ডাক টিকিট, উদ্বোধনী খাম ও ডাটা কার্ড উন্মুক্ত

ডাক টিকিট দিবস উপলক্ষে ডাক অধিদফতর প্রকাশিত পাঁচ টাকা মূল্যমানের একটি স্মারক ডাক টিকিট, ১০ টাকা মূল্যমানের একটি উদ্বোধনী খাম ও পাঁচ টাকা মূল্যমানের ডাটা কার্ড অবমুক্ত করেন। এ বিষয়ে একটি বিশেষ সিলমোহর ব্যবহার করা হয়েছে।

স্মারক ডাক টিকিট, উদ্বোধনী খাম ও ডাটা কার্ড রোববার ঢাকা জিপিও-এর ফিলাটেলিক ব্যুরো থেকে বিক্রি করা হচ্ছে। পরবর্তীতে অন্যান্য জিপিও ও প্রধান ডাকঘরসহ দেশের সকল ডাকঘর থেকে এ স্মারক ডাক টিকিট বিক্রি করা হবে। উদ্বোধনী খামে ব্যবহারের জন্য চারটি জিপিওতে বিশেষ সিলমোহরের ব্যবস্থা আছে।

অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার, ডাক অধিদফতরের মহাপরিচালক সুশান্ত কুমার মণ্ডল এবং ফিলাটেলিক অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষে আনোয়ার হোসেন মল্লিক অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here