ফ্ল্যাটের নিবন্ধনের খরচ কমছে!

5
0

ফ্ল্যাট ও প্লটের রেজিস্ট্রেশন বা নিবন্ধন ব্যয় বর্তমানে ১৪ থেকে ১৬ শতাংশ। এই উচ্চ ব্যয়ের কারণে অনেক ক্রেতাই ফ্ল্যাট বা প্লট নিবন্ধনের আগ্রহ দেখান না। তাতে সরকারও বিপুল পরিমাণ রাজস্ব হারাচ্ছে। সে জন্য আবাসন ব্যবসায়ীদের সংগঠন রিহ্যাব নেতারা দীর্ঘদিন ধরে নিবন্ধন ব্যয় কমানোর দাবি করে আসছেন। তাঁরা মনে করেন, নিবন্ধন ব্যয় কমানো হলে সাধারণ ক্রেতারা কিছুটা স্বস্তি পাবেন। তাতে ফ্ল্যাটের ব্যবসা বাড়বে।

অবশেষে নিবন্ধন ব্যয় কমানোসহ কয়েকটি বিষয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও দপ্তরে সুপারিশ করতে যাচ্ছে আবাসন খাতের সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর), গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ও ব্যবসায়ীদের সমন্বয়ে গঠিত যৌথ ওয়ার্কিং কমিটি। ইতিমধ্যে তিনটি বৈঠক করে খসড়া সুপারিশ চূড়ান্ত করেছে কমিটি। এনবিআরের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ও রিহ্যাব নেতাদের সঙ্গে কথা বলে এই বিষয় নিশ্চিত হওয়া গেছে।

রিহ্যাবের শীর্ষ নেতারা জানান, গত বছর তাঁরা আবাসন খাতের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তখন এনবিআর চেয়ারম্যান যৌথ ওয়ার্কিং কমিটি গঠন করে দেন। সেই কমিটির প্রথম বৈঠকে রিহ্যাবের পক্ষ থেকে নিবন্ধন ব্যয় কমানো, সম্পদ কর হ্রাস, কর অবকাশ সুবিধা, এক অঙ্কের সুদহারে গৃহঋণ দেওয়ার জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার পুনঃ অর্থায়ন তহবিল গঠনসহ ১২ দফা প্রস্তাব দেওয়া হয়। পরে আরও দুটি বৈঠকে অধিকাংশ বিষয়ে একমত হয়েছেন কমিটির সদস্যরা। আগামী বাজেটে বাস্তবায়নের জন্য এনবিআর, অর্থ মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন দপ্তরে শিগগিরই সুপারিশ জমা দেবে এ কমিটি।

জানতে চাইলে যৌথ ওয়ার্কিং কমিটির প্রধান ও এনবিআরের সদস্য (ভ্যাট নীতি) রেজাউল হাসান গতকাল প্রথম আলোকে বলেন, ‘রিহ্যাবের অধিকাংশ প্রস্তাবেই আমরা একমত হয়েছি। তবে সব কটি বাস্তবায়ন এনবিআরের হাতে নেই। সে জন্য এনবিআর-বহির্ভূত বিষয়গুলো আমরা সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে বাস্তবায়নের জন্য সুপারিশ করব।’ তিনি আরও বলেন, ‘রিহ্যাবের প্রস্তাবে কিছু তথ্য ঘাটতি রয়েছে। সেগুলো তাদের কাছে আমরা চেয়েছি। পেলেই সুপারিশ চূড়ান্ত করা হবে।’

স্বল্প আয়ের মানুষের জন্য এক অঙ্কের সুদহারে দীর্ঘমেয়াদি ঋণের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার পুনঃ অর্থায়ন তহবিল গঠন করার প্রস্তাব দিয়েছে রিহ্যাব। তারা বলছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে পুনঃ অর্থায়ন তহবিল চালু করা হলে সাধারণ ক্রেতারা তাঁদের চাহিদামতো ফ্ল্যাট কেনার জন্য স্বল্প সুদে দীর্ঘমেয়াদি ঋণ নিতে পারবেন। এতে ভাড়ার টাকায় ফ্ল্যাটের মালিক হতে পারবেন। বর্তমানে তফসিলি ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে স্বল্প আয়ের মানুষের জন্য গৃহঋণ দেওয়া বন্ধ আছে। এ ছাড়া ৬ থেকে ৭ শতাংশ সুদে ৩০ বছর মেয়াদি গৃহঋণ দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরেশনকে তহবিল দেওয়ার প্রস্তাব করেছে রিহ্যাব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here