স্মার্ট ঢাকা গড়তে চান আতিকুল

4
0

ঢাকা মহানগর উত্তর সিটি করপোরেশনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘আমরা চাই, একটি স্মার্ট ঢাকা। এই স্মার্ট ঢাকার জন্য আমাদের হাতে স্মার্টফোনের মাধ্যমে “নগর অ্যাপস”-এর মাধ্যমে ঢাকাবাসী ছবি তুলে পাঠাবে। বাকি কাজ হচ্ছে ডিএনসিসির। সাত দিনের মধ্যে যদি না করে, তাহলে তখন মেয়রকে জবাবদিহি করতে হবে।’

ঢাকার কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আজ মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগের এক মতবিনিময় সভায় আতিকুল ইসলাম এ কথা বলেন।

আতিকুল ইসলাম বলেন, নগরবাসী ময়লায় স্তূপের ছবি তুলে দেবেন, লাইটবিহীন ল্যাম্পপোস্ট থাকলে ছবি তুলে দেবেন, ম্যানহোলের ঢাকনা না থাকলে ম্যানহোলের ছবি তুলে দেবেন—এই ছবি তুলে পাঠিয়ে দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দপ্তর সেখানে চলে যাবে। তিনি বলেন, যদি সাত দিনের মধ্যে কাজ না হয়, তখন স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিষয়টি মেয়রের দৃষ্টিগোচর হবে। তখন দায়িত্বরত কর্মকর্তার কাছে জবাবদিহি চাইবেন মেয়র।

মেয়র প্রার্থী আতিকুল বলেন, ঢাকাবাসীর ছবি তুলে পাঠিয়ে দেওয়ার মাধ্যমে মেয়রের ভূমিকায় অবতীর্ণ হবেন। ছবি তুলে পাঠিয়ে দিলেই নগরবাসী মেয়রের অবস্থানে কাজ করবেন। আপনারাও কিন্তু কাজ করবেন কাউন্সিলর হিসেবে, কাজ করবেন প্রতিনিধি হিসেবে। তিনি আরও বলেন, দ্রুত সমস্যার সমাধান হবে। আমি বলে কিছু নেই। আমরা সবাই মিলে কাজ করব।

ডিএনসিসিকে অটোমেশনের আওতায় আনার প্রত্যাশা রেখে আতিকুল ইসলাম বলেন, মৃত্যু, জন্মসনদ ও অন্যান্য সনদ অটোমেশনের মাধ্যমে হয়ে যাবে। শুধু একদিন গিয়ে সনদ নিয়ে আসতে হবে। তিনি আরও বলেন, কিছুর জন্য বারবার ধরনা দিতে হবে না। একটি জবাবদিহির সিটি করপোরেশন করার আশা প্রকাশ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতো স্থানীয় সরকার নির্বাচনে লজ্জাজনক পরাজয় এড়াতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না বিএনপি। তিনি বলেন, ডিএনসিসি নির্বাচনে বিএনপি সরাসরি অংশ নেয়নি। বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেয়নি বলে এতে আওয়ামী লীগের আত্মতৃপ্তির কোনো কারণ নেই। বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার পেছনে একটি বড় কারণ হলো, তারা একাদশ জাতীয় নির্বাচনে লজ্জাজনকভাবে পরাজিত হয়েছে।

মাহবুব উল আলম হানিফ আরও বলেন, বিএনপি জানে, আবার যদি মহানগরে নির্বাচনে অংশ নেয়, তাহলে অনুরূপভাবে লজ্জাজনক পরাজয় হবে। বিএনপি আরেকবার এই লজ্জাজনক পরাজয় এড়ানোর জন্যই এই নির্বাচনে অংশ নেয়নি।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওছার, সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথ প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here