আর্জেন্টিনার আদালতে সু চির বিরুদ্ধে মামলা

23

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর সেনাবাহিনীর নির্যাতনের ঘটনায় দেশটির নেত্রী অং সান সু চিসহ দেশটির কয়েকজন শীর্ষ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনার আদালতে মামলা করা হয়েছে। এই প্রথম সু চির বিরুদ্ধে কোনো মামলা হলো।

রোহিঙ্গা ও লাতিন আমেরিকার মানবাধিকার গোষ্ঠী বুধবার এই মামলা করে। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।

আর্জেন্টিনায় ‘ইউনিভার্সাল জুরিসডিকশনের’ নীতিতে মামলাটি করা হয়েছে। যুদ্ধাপরাধ, মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের মতো ঘটনায় এ মামলা করা যায়।

মামলায় দেশটির সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইয়াংসহ শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিচার দাবি করা হয়েছে।

সু চিসহ দেশটির সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে  রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর অস্তিত্বে হুমকি সৃষ্টি করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

আইনজীবী টমাস ওজি বলেন, মামলার অভিযোগে মিয়ানমারের গণহত্যায় জড়িতদের নিশাস্তি দাবি করা হয়েছে। তাদের অন্য কোথাও মামলা করার সুযোগ না থাকায় আর্জেন্টিনার আদালতে মামলা করা হয়েছে।

এর আগে সোমবার রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা চালানোর অভিযোগ এনে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে জাতিসংঘের সর্বোচ্চ আদালতে আরেকটি মামলা করেছে আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া।

ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসে (আইসিজে) ওই মামলা করেছে গাম্বিয়া। জাতিসংঘের সর্বোচ্চ এই আদালতটি ‘ওয়ার্ল্ড কোর্ট’ নামেও পরিচিত। নেদারল্যান্ডসের শহর দ্য হেগে এই আদালত অবস্থিত।

আইনজীবী ওজি বলেন, আশা করছি, এই মামলার ফলে আন্তর্জাতিক গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হবে।

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট রাখাইনের কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার পর পূর্ব-পরিকল্পিত ও কাঠামোবদ্ধ সহিংসতা জোরালো করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। হত্যা-ধর্ষণসহ বিভিন্ন ধারার সহিংসতা ও নিপীড়ন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সাত লাখেরও বেশি মানুষ।