পাঁচ দেশের নাটক নিয়ে ১১ দিন আন্তর্জাতিক নাট্যোৎসব

4

নৃশংস নৈঃশব্দ্য ভেঙে সুনন্দ সাহস জাগুক প্রাণে প্রাণে’ এমনই স্লোগান নিয়ে শুরু হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক নাট্যোৎসব ‘বটতলা রঙ্গমেলা ২০১৯’। আগারগাঁও মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে আগামীকাল ১৬ নভেম্বর থেকে তৃতীয় বারের মতো শুরু হতে যাচ্ছে এই উৎসব।

শনিবার সন্ধ্যা ৬টায় উৎসবের উদ্বোধন করবেন নাট্যজন আতাউর রহমান। প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন ড. মো: আবু হেনা মোস্তফা কামাল, এনডিসি, সচিব, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়। বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন তিনজন তরুন নাট্যকার – সাধনা আহমেদ, রুমা মোদক ও শুভাশিস সিনহা।

১১ দিন ব্যাপী আন্তর্জাতিক এই নাট্যোৎসবে প্রতিদিন ‘মূল রঙ্গমঞ্চে’ সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে বটতলাসহ বাংলাদেশের ২টি ও বিদেশের ৮টি দল তাদের নাটক পরিবেশন করবে। অংশগ্রহনকারী দেশগুলো হলো- বাংলাদেশ, ভারত, স্পেন, ইরান ও নেপাল।

প্রতিদিন বহিরাঙ্গনে ‘নাদিম মঞ্চে’ থাকছে নাটক, গান, কবিতা, মূকাভিনয়, নাচসহ বিভিন্ন আনন্দ আয়োজন, যা শুরু হবে সন্ধ্যা ৬টায়।

গতবারের মত এবারও থাকছে দেশের ৮টি বিভাগের ৮ নাট্যজনকে সম্মাননা প্রদান। যারা খুব নীরবে-নিভৃতে দীর্ঘদিন ধরে নাট্যচর্চাকে এগিয়ে নিতে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন এবং করছেন।

বটতলা রঙ্গমেলা উৎসবে প্রতিবারই মঞ্চের একজন গুনী শিল্পীকে আজীবন সম্মাননা প্রদান করে থাকে। এবারে ২৬ নভেম্বর উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানের দিন আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হবে খ্যাতিমান অভিনেতা, নাট্যকার, নির্দেশক ‘মামুনুর রশীদ’কে।

এই উৎসবের আয়োজক সূত্রে জানা গেছে, এবারের উৎসবে যুক্ত করতে যাচ্ছে আরেকটি ভিন্ন মাত্রা। বিভাগীয় নাট্যজনদের পাশাপাশি এবার পর্দার অন্তরালের ১০ জন মানুষকে সম্মান জানানো হবে, যারা দীর্ঘদিন ধরে মঞ্চ নাটককে সফল করতে অন্তরালে থেকে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন প্রতিদিন।

উৎসব সংক্রান্ত যে কোনো তথ্য ও টিকেটের পাওয়া যাবে বটতলা ওয়েব সাইটে