৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন ক্রিকেটার শাহাদাত

26
জাতীয় লিগে সতীর্থকে মারার ঘটনায় বড় শাস্তিই অপেক্ষা করছিল শাহাদাত হোসেন রাজীবের ভাগ্যে। শুরুতে এক বছরের শাস্তির কথা শোনা গেলেও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এমন কাণ্ডে তাকে নিষিদ্ধ করেছে ৫ বছর! একই সঙ্গে জরিমানা করা হয়েছে ৩ লাখ টাকা। ৫ বছরের মধ্যে দুই বছর আবার স্থগিত নিষেধাজ্ঞার বিধান রয়েছে। এছাড়া এই শাস্তির বিরুদ্ধে ২৬ নভেম্বরের মধ্যে আপিলও করতে পারবেন তিনি। মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে এই শাস্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ম্যাচ রেফারি আখতার আহমেদও স্বীকার করেন ঘটনার সত্যতা। তিনি জানান রিপোর্ট পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে টেকনিক্যাল কমিটির কাছে। শাহাদাতের আগের কর্মকাণ্ডের প্রসঙ্গে তুলে কমিটির প্রধান মিনহাজুল আবেদীন নান্নু আজকে জানান, ‘শাহাদাত আগেও এমন ঘটনা ঘটিয়েছিল। মাঠের মধ্যে সতীর্থদের গায়ে হাত দেওয়া গুরুতর অপরাধ। কমিটির সবাই তার এই শাস্তির ব্যাপারে একমত ছিল।’ ঘটনাটি ঘটেছে এনসিএলে খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে খেলার দ্বিতীয় দিন। ঢাকা বিভাগ ও খুলনা বিভাগের মধ্যকার খেলায় নিজ দলের সতীর্থ আরাফাত সানি জুনিয়রকে বল শাইন করে দিতে বলেছিলেন শাহাদাত। সানি অনীহা প্রকাশ করলে লাঞ্চের সময়ই সানির ওপর শারীরিক হামলা চালান তিনি। বাকিরা এসে তখন রক্ষা করেন সানিকে। এর আগে গৃহকর্মীকে নির্যাতনের জন্য নিষেধাজ্ঞাসহ জেলও খেটেছেন শাহাদাত। তিনি নিজেই জানান মেজাজ হারিয়ে ফেলাতেই এমন কাণ্ড ঘটেছে, ‘এটা সত্যি আমি নিজের মেজাজ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারিনি। তবে সানি আমার সঙ্গে বাজে ব্যবহার করেছে। যখন বল শাইন করতে বলেছি বাজেভাবে সে উত্তর দিয়েছে, যা আমার পক্ষে হজম করা কঠিন ছিল।’