বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১ লাখ ৪৫ হাজারেরও বেশি

5

বিশ্বজুড়ে নভেল করোনাভাইরাসে (কভিড-১৯) আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৭ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণ কেড়েছে করোনাভাইরাস। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৯৫ হাজার। এই নিয়ে বিশ্বে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১ লাখ ২০ হাজার ৮২৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৪৫ হাজার ৫৫১ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ৫ লাখ ৪৭ হাজার ৫৮৯ জন।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, গত কয়দিনের মত মৃতের সংখ্যায় এগিয়ে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২ হাজার ১শোর বেশি জন মানুষ। এ নিয়ে সেখানে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৪ হাজার ৬১৭ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন অন্তত ৬ লাখ ৭৩ হাজার ২১৫ জন। এদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৫৭ হাজার ২৩২ জন। যুক্তরাষ্ট্রের শুধু নিউইয়র্কেই মৃত্যু হয়েছে ১৬ হাজার ১০৬ জনের। এই প্রদেশে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ২৬ হাজার ১৯৮ জন। নিউ জার্সি শহরে মৃত্যু হয়েছে ৩৫১৮ জনের। ম্যাসাসুসেটসে মৃত্যু হয়েছে ১২৪৫ জনের। মিশিগানে মৃত্যু হয়েছে ২০৯৩ জনের, ইলিনয়ে মৃত্যু হয়েছে ১০৭২ জনের। এছাড়া লুসিয়ানায় মৃত্যুর সংখ্যা ১১৫৬ জন। অন্য সব শহরগুলিতে মৃতের সংখ্যা ১০০০ এর কম।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অবশ্য এর মধ্যেও আশা দেখছেন। তিনি জানিয়েছেন, করোনার হার সর্বোচ্চ শিখরে পৌঁছেছে। তার আশা খুব দ্রুত এটি কমতে শুরু করবে। এদিকে লকডাউন তুলে সব অর্থনৈতিক কর্মকান্ড আবার চালুর পরিকল্পনা ঘোষণা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের সব রাজ্যের গভর্নরদের কাছে ৩ স্তরের এই পরিকল্পনার কথা জানান ট্রাম্প। এদিকে নিউ ইয়র্কে ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে আনতে মের ১৫ তারিখ পর্যন্ত লকডাউন চলবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন গভর্নর এন্ড্রিউ কুমো।

স্পেন গত ২৪ ঘন্টায় ৫০৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪২৮৯ জন। সেখানে এখনো পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৮৪ হাজার ৯৮৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৯ হাজার ৩১৫ জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭৪ হাজার ৭৯৭ জন।

ফ্রান্সে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু রেকর্ড হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় ৭৫৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৭ হাজার ১৬৪ জন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬৫ হাজার ২৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৭ হাজার ৯২০ জনের।

ইতালিতে গত ২৪ ঘন্টায় ৫২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৭৮৬ জন। সেখানে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩ হাজার ৯৩ জন। সবমিলিয়ে মৃত্যু হয়েছে ২২ হাজার ১৭০ জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪০ হাজার ১৬৪ জন।

এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় যুক্তরাজ্যে ৮৬১ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৪ হাজার ৬১৭ জন। সেখানে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩ হাজার ৯৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৩ হাজার ৭২৯ জনের। মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় দেশজুড়ে লকডাউন ৩ সপ্তাহ বাড়িয়েছে যুক্তরাজ্য।

গত ২৪ ঘন্টায় জার্মানিতে ২৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ২ হাজার ৯শো ৪৫ জন। সেখানে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩৭ হাজার ৬৯৮ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ৫২ জনের।

শুরুর দিকে সিঙ্গাপুরকে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় আদর্শ মনে করা হলেও ধীরে ধীরে যেন ম্লান হতে চলেছে সেই সাফল্য। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও ৭২৮ জন, যা এর আগের একদিনে সর্বাধিক আক্রান্তের রেকর্ডের প্রায় দ্বিগুণ। বৃহস্পতিবার শনাক্ত হওয়া করোনা রোগীদের প্রায় ৯০ শতাংশই অভিবাসী ডরমিটরি সম্পর্কিত। গত ২৪ ঘণ্টায় এ ধরনের রোগী শনাক্ত হয়েছেন অন্তত ৬৫৪ জন।

করোনাভাইরাসের কারণে জাপানে জরুরি অবস্থা জারি হয়েছে বহাল থাকবে ৬ মে পর্যন্ত। পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় এবার জাপানজুড়ে কড়াকড়ি বাড়াতে বাধ্য হয়েছেন বলে জানান- প্রধানমন্ত্রী আবে।

করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে না পারায় ব্রাজিলের স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে পদচ্যুত করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো। পোল্যান্ডে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে মে মাসের ৩ তারিখ পর্যন্ত সীমান্ত বন্ধ রাখা হবে।

আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের ক্ষুদ্র দেশ এসওয়াতিনিতে প্রথমবারের মত শনাক্ত হয়েছে করোনা রোগী। এপ্রিলের ২৭ থেকে লকডাউন শিথিল করা হবে বলে জানিয়েছে সুইজারল্যান্ড। আফ্রিকায় করোনা রোগী বাড়ছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক রেড ক্রস।

বাংলাদেশে নভেল করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬০ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩শ ৪১ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এতে মোট আক্রান্ত দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৫শ ৭২ জনে।