জীবনের ঝুঁকি নিতে যারা পিছপা হয় না তারাই হচ্ছে বাকেরগঞ্জের ছাত্রলীগ

8

খান মেহেদীঃ

মানুষের সকল দুর্যোগে সবার আগে ঝাঁপিয়ে পড়ে যারা।তারাই ছাত্রলীগ।
বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ মৃত্যুর পথযাত্রী রোগীদের রক্তদান ও রক্তদান কর্মসূচি পরিচালনা করেন ।তারাই ছাত্রলীগ।
রাজপথে গনমানুষের অধিকার আদায়ে যুগে যুগে গোলাবারুদের সামনে বুক পেতে দেয় যারা তারাই ছাত্রলীগ।
ঝর বন্যা জলোচ্ছ্বাস সিডর আইলা মহাসেন বুলবুল মোকাবেলায় মাঠে থাকেন যারা তারাই ছাত্রলীগ।
ভাষা আন্দোলনে স্বাধীনতা যুদ্ধে অগ্ৰনী ভুমিকা ছিল কাদের??? ছাত্রলীগ এর।
এমন অসংখ্য/ অগনিত মানবিক কার্যক্রম এ ঝাঁপিয়ে পরাই ছাত্রলীগের নিতী আদর্শ। চরিত্রের একটি বিশেষ গুন।এটি একটি দ্রব্য গুনের মত ও বলতে পারেন।
তাইতো দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সর্ববৃহৎ এ সংগঠনটি মান মর্যাদায় এখন অনান্য উচ্চতায়।
মানবিকতা আর একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন বরিশাল জেলা বাকেরগঞ্জ উপজেলার দাড়িয়াল ইউনিয়নের উত্তমপুর গ্ৰামের আহম্মেদ হাওলাদার এর ছেলে মামুন হাওলাদার ৩০ মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমণ এ আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।
তার লাশ দাফন করতে কেউ এগিয়ে আসেনি।
খবর পেয়ে উল্কার বেগে ছুটে যান দাড়িয়ালের কৃতি সন্তান ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াজ হাওলাদার।
তিনি একটি টিম গঠন করে মামুন হাওলাদার এর কবর খোঁড়া থেকে শুরু করে দাফন কাফন এর সকল কার্যক্রম সমাপ্ত করেন।
তোমাদের ধন্যবাদ দিয়ে ছোট করবো না প্রিয় ভাইয়েরা তোমরাই পারবে দেশে-বিদেশে মানবতার মা গনতন্ত্রের মানস কন্যা মাদার অব হিউম্যানিটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার মুখ উজ্জ্বল করতে। তোমাদের প্রতি এ বিশ্বাস ও ভরশা আছে আমাদের।

আল্লাহ তায়ালা তোমাদের নেক হায়াত এ তাইয়্যেবা দান করুন।
আমিন।