নারায়নগঞ্জে র‍্যাব-১১ তে করোনার হানা

3

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি, এফ আই নয়নঃ

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব-১১) নারায়ণগঞ্জে ৩৯ সদস্যের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তদের মধ্যে ১৭ জন বর্তমানে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বাকিরা আইসোলেশনে আছেন। ২৯ এপ্রিল(বুধবার) রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছন র‌্যাব-১১ এর সিও লে. কর্নেল ইমরান উল্লাহ সরকার ও র‍্যাব ১১-এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক আলেপ উদ্দিন।
শনাক্তদের মধ্যে আছেন- র‌্যাব-১১-এর উপ পরিচালক (স্কোয়াড্রন লীডার) রেজাউল হক, সিনিয়র সহকারী পরিচালক জসিম উদ্দীন চৌধুরী, এএসপি নাজমুল হাসান, সহকারী পরিচালক মশিউর রহমান। বাকিদের নাম জানা যায়নি। র‌্যাব-১১-এর সিও লে. কর্নেল ইমরান উল্লাহ সরকার বলেন, ইতোমধ্যে করোনা শনাক্ত ১৭ সদস্য বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। মোট ৩৯ সদস্য আইসোলেশনে রয়েছেন। র‌্যাব সদস্যদের মধ্যে উপসর্গ দেখা দিলেই হোম কোয়ারেন্টিন ও আইসোলেশনে রাখা হচ্ছে। সহকর্মীরা আক্রান্ত হওয়ায় তিনি নিজের নমুনাও পরীক্ষা করিয়েছেন। তার করোনা নেগেটিভ এসেছে বলে জানান তিনি।
র‌্যাবের সিনিয়র সহকারী পরিচালক আলেপ উদ্দিন জানান, এ পর্যন্ত ২ শতাধিক র‍্যাব সদস্যের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩৯ জন আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে করোনার কোনো উপসর্গ ছিল না। র‌্যাবের সদস্যরা মূলত জনসেবামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়ে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে গেছেন। ফলে র‌্যাবের কেউ যদি আক্রান্ত হয় তার থেকে যেন অন্যদের মধ্যে ছড়াতে না পারে সেজন্য নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এখন পর্যন্ত অনেক রিপোর্ট এসেছে, আরও আসা বাকি আছে। সব রিপোর্ট আসলে জানা যাবে মোট কতো
জন আক্রান্ত।
২৫ মার্চ রাতে সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর থেকেই র‌্যাব-১১-এর সদস্যরা করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা, মানুষকে সচেতন করা, কর্মহীন ও অনহারে থাকা মানুষের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়াসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন।