রাজধানীতে করোনার ‘দুশ্চিন্তায়’ ছাদ থেকে লাফিয়ে পুলিশ সদস্যের আত্মহত্যা!

0

রাজধানীর খিলগাঁও থানা এলাকার তিলপাড়ায় বাসার ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে তোফাজ্জল হোসেন (৪৫) নামে এক পুলিশ সদস্য আত্মহত্যা করেছেন। করোনাভাইরাসের দুশ্চিন্তায় তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি করেছে তার পরিবার।

আজ সোমবার সকাল পৌনে ৯টায় খিলগাঁও তিলপাড়ার ১৬৮/এ বাসায় এ ঘটনা ঘটেছে। তোফাজ্জল হোসেন পুলিশের এসবি শাখার কন্সটেবল হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিহত তোফাজ্জল বাসা থেকে দরজা খুলে বের যাওয়ার কিছু সময় পর পাঁচ তলার ছাদ থেকে ভারী কিছু পড়ে যাওয়ার শব্দ পান তার স্ত্রী। এরপর বাসার অন্যরা বের হয়ে দেখেন বাসার সামনের রাস্তায় তোফাজ্জলের রক্তাক্ত লাশ পড়ে আছে।

পরিবারের দাবি, সম্প্রতি করোনা টেস্টে তার ফলাফল নেগেটিভ এসেছিল। কিন্তু তিনি ফলাফলে সন্তুষ্ট ছিলেন না। সবসময়ই দুশ্চিন্তায় থাকতেন যে, হয়তোবা তার করোনা হয়েছে। চিন্তায় চিন্তায় তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন।

আর এ কারণেই তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে পুলিশের কাছে দাবি করেছেন তার স্ত্রী। কনস্টেবল তোফাজ্জল স্ত্রী ও দুই মেয়ে নিয়ে ওই বাসায় থাকতেন।

তবে পুলিশ বলছে, তার স্ত্রীর দাবি সঠিক কি না সেটা যাচাই করা হচ্ছে। পারিবারিক কোনো কলহ বা আত্মহত্যার অন্য কোনো কারণ আছে কি না সেটাও তদন্ত করা হচ্ছে।

খিলগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মশিউর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘সকাল পৌনে ৯টার দিকে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে। তিনি পুলিশের এসবি শাখার কনস্টেবল হিসেবে কর্মরত ছিলেন।’

আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে ওসি বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে তার পরিবারের সদস্যরা বলছে যে করোনা নিয়ে তিনি বেশ চিন্তিত ছিলেন। যদিও গত ২৯ এপ্রিল তার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। এরপরও বিষয়টি নিয়ে তার স্ত্রীর এবং তিনিও সন্দেহ প্রকাশ করেন। সব মিলিয়ে মানসিকভাবে হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছিলেন। এ কারণেই আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।’

তবে আত্মহত্যার অন্য কোনো কারণ আছে কি না সেটাও তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ওসি।

খিলগাঁও থানার উপপরিদর্শক (এসআই) অনিরুদ্ধ রায় বলেন, ‘লাশটি উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। করোনা নিয়ে হতাশা নাকি পারিবারিক কলহের কারণে আত্মহত্যা, সেটা তদন্ত করা হবে।’

Sponsored